শিরোনাম


ঠোঁটের অলস উত্তাপে মুদিত চোখের অনুভব,
কাঁশবন সদৃশ হাওয়ায় দুলানো এলোকেশ
নিঃশ্বাসের সাথে বুকের ওঠানামায় চাপা পড়া শৈশব।

নীলিমা বন্যার তরঙ্গ দিচ্ছে মরুঝড়ের আভাস,
লালমাটি আর পাথুরে রুক্ষতা ভুলে
কামনায় বিভোর নাভির গভীরে জিহ্বার বসবাস।

তাড়িত উৎসবের রন্ধ্রে রন্ধ্রে নীল লোহিত উন্মাদনা,
স্থাপিত মৃত্যুতে মিথ্যার সাথে বিভৎস মৃত্যুর বৈরিতা
আজন্মকালে ভেষজ রঙ্গের পিরামিড নির্মিত বাসনা।

কিরন আর বৃষ্টিমাখা সবুজের শরীরে হেলেদুলে সাজে,
কামনার স্রোতে উদ্ভাসিত মধুরেণু কাব্যজগতে
আত্মনিমগ্ন ছিলাম তোমার লালিত দেহের ভাঁজে।

পূর্ণযৌবনা তটিনীর স্মৃতি প্রতিফলিত মৃদঙ্গ ধ্বনি,
স্বপ্নচোর হয়ে উর্মিমালা গেঁথে পথসঙ্গী হয়ে সংগোপনে
রোমাঞ্চে বিভোর ক্ষুধার্ত খোলা অঙ্গে আঁচ করে যাই তোমার গোঁঙানি।

বিরহাতুর নির্বসন ভ্রান্তিবিলাসে প্রেমাতুর চিত্তে রক্তক্ষরণ,
রাতের আঁধার চিরে পূবাকাশ পড়েছে সিঁদুরে টিপ
ফ্যাকাসে অন্তর্দহতা নিয়ে ব্যাথাতুর জীর্ণ মানবতায় হৃদয়ের আস্ফালন।।

শান্তিবার্তা ডটকম/১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ / অনাদি