শিরোনাম
  শাল্লার ঘটনায় জড়িতরা ছাড় পাবার সুযোগ নাই- র‍্যাব মহাপরিচালক       সুনামগঞ্জে বাঁধের কাজ শেষ না হওয়ায় সর্বদলীয় সম্প্রীতি উদ্যোগের সংবাদ সম্মেলন       দক্ষিণ সুনামগঞ্জে কিশোরী ধর্ষণের শিকার- ধর্ষক গ্রেফতার       বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী- সুনামগঞ্জ আওয়ামীলীগের কর্মসূচি ঘোষণা       সুনামগঞ্জে হাওরডুবি হলে দায় প্রশাসন ও পাউবো কে নিতে হবে- হাওর বাঁচাও আন্দোলন       পিকেসিএসবিডির ট্যালেন্ট হান্ট বাছাইয়ে জাতীয় পর্যায়ে সুযোগ পেলেন ছাতকের তিন ক্রিকেটার       দক্ষিণ সুনামগঞ্জে শিমুলবাঁক ইউপি চেয়ারম্যানের সমর্থনে ভোটারদের মতবিনিময় সভা       দোয়ারাবাজার উপজেলায় এড. বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু স্মরণে শোকসভা       দক্ষিণ সুনামগঞ্জে মদ, গাঁজা ও নগদ অর্থ সহ মাদক ব্যবসায়ী আটক       শ্মশানের উপর দিয়ে ফসলরক্ষা বাঁধ, পিআইসি নিয়ে যত প্রশ্ন    


বিশেষ প্রতিনিধিঃ

একের পর এক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সুনামগঞ্জ-৩ (দক্ষিণ সুনামগঞ্জ-জগন্নাথপুর) সংসদীয় আসনের রূপরেখায় আমুল পরিবর্তন এনে নির্বাচনী এই আসনের সর্বস্তরের মানুষের মনে একজন উন্নয়নমুখী জননেতা হিসেবে ইতোমধ্যে গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছেন বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। শুধু নিজ সংসদীয় আসনই নয়, পুরো জেলাব্যাপী তিনি উন্নয়নমুখী নেতা হিসেবে সমাদৃত। রাস্তাঘাট নির্মাণ, ব্যয়বহুল ব্রিজ নির্মাণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট, ফায়ার সার্ভিস ক্যাম্প স্থাপন, বিদ্যুতের চাহিদা পূরণ, স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশনের ব্যবস্থাকরণ, বিশুদ্ধ পানির চাহিদা পূরণ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সরকারিকরণ ও বহুতল ভবন নির্মাণসহ অসংখ্য বড় বাজেটের প্রকল্প এনে পুরো জেলায় তিনি ‘হাওররত্ন’ উপাধিতে ভূষিত।

পরিকল্পনামন্ত্রীর এমন উন্নয়নমুখী কাজের প্রশংসায় দল-মত নির্বিশেষে সবাই যেন একাট্টা। মন্ত্রীর এসব উন্নয়নমুখী কর্মকাণ্ডে মুগ্ধ হয়ে কেউ কেউ এই জননেতাকে ‘ম্যাজিকম্যান’ বলেও আখ্যায়িত করে থাকেন। এবার মন্ত্রীর অবদানে শিক্ষাক্ষেত্রে আরেক ধাপ উন্নয়নের ছোঁয়া পেতে যাচ্ছে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ও জগন্নাথপুর উপজেলার ৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে আছে দক্ষিণ সুনামগঞ্জের ৩টি এবং জগন্নাথপুর উপজেলার ৩টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জের ৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে- পূর্ব পাগলা উচ্চবিদ্যালয়, ঈশাকপুর-শ্রীরামপুর উচ্চবিদ্যালয় এবং সলফ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়। আর জগন্নাথপুর উপজেলার ৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে- পাইলগাঁও বিএন উচ্চবিদ্যালয়, পঞ্চগ্রাম উচ্চবিদ্যালয় এবং সফাত উল্লাহ উচ্চবিদ্যালয়। এসব প্রতিষ্ঠানে একটি করে বন্যার্তদের আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে বলেও জানা গেছে।

জানা যায়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর থেকে ৪টি ও শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর থেকে ‘হাওরের শিক্ষা অবকাঠামো উন্নয়ন’ প্রকল্পের আওতায় ২টিসহ মোট ৬টি ভবনের অনুমোদন দিয়েছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়। এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৬টি ভবনের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ২২ কোটি টাকা।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শাহাদাৎ হোসেন ভূঁইয়া জানান, চলতি বছরের ৫ সেপ্টেম্বর দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ও জগন্নাথপুরে দু’টি ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন পরিকল্পনামন্ত্রী। মাসখানেকের মধ্যে টেন্ডার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বাকি কাজও বাস্তবায়ন করা হবে।

পরিকল্পনামন্ত্রীর ব্যক্তিগত রাজনৈতিক সচিব হাসনাত হোসাইন বলেন, সুনামগঞ্জ-৩ আসনসহ জেলাব্যাপী পরিকল্পনামন্ত্রীর উন্নয়ন কার্যক্রম প্রতীয়মান, যার সুফল জেলাবাসী ভোগ করছেন। শুধু সুনামগঞ্জ-৩ আসনই নয়, পরিকল্পনামন্ত্রী উন্নয়নে হাওরের এই জেলা একটি মডেল জেলায় রূপান্তরিত হবে।

শান্তিবার্তা ডটকম/২৮ আগস্ট ২০২০/ সিলেট ভয়েস




শাল্লার ঘটনায় জড়িতরা ছাড় পাবার সুযোগ নাই- র‍্যাব মহাপরিচালক

সুনামগঞ্জে বাঁধের কাজ শেষ না হওয়ায় সর্বদলীয় সম্প্রীতি উদ্যোগের সংবাদ সম্মেলন

দক্ষিণ সুনামগঞ্জে কিশোরী ধর্ষণের শিকার- ধর্ষক গ্রেফতার

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী- সুনামগঞ্জ আওয়ামীলীগের কর্মসূচি ঘোষণা

সুনামগঞ্জে হাওরডুবি হলে দায় প্রশাসন ও পাউবো কে নিতে হবে- হাওর বাঁচাও আন্দোলন

পিকেসিএসবিডির ট্যালেন্ট হান্ট বাছাইয়ে জাতীয় পর্যায়ে সুযোগ পেলেন ছাতকের তিন ক্রিকেটার

দক্ষিণ সুনামগঞ্জে শিমুলবাঁক ইউপি চেয়ারম্যানের সমর্থনে ভোটারদের মতবিনিময় সভা

দোয়ারাবাজার উপজেলায় এড. বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু স্মরণে শোকসভা

দক্ষিণ সুনামগঞ্জে মদ, গাঁজা ও নগদ অর্থ সহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

শ্মশানের উপর দিয়ে ফসলরক্ষা বাঁধ, পিআইসি নিয়ে যত প্রশ্ন