শিরোনাম
  দৈনিক জৈন্তা বার্তা’র ছাতক প্রতিনিধির দায়িত্ব পেলেন মোশাররফ হোসেন       গণগ্রন্থাগারে সরকারি অনুদান বাড়ানোর দাবি       ফারমিছ আক্তারকে ‘নির্ভীক নারী উদ্যোক্তা সম্মাননা’ প্রদান       সাংবাদিকতায় সফল নারী সুবর্ণা হামিদ       আন্তর্জাতিক নারী দিবস আজ       নারী দিবসের সংগ্রামী ইতিহাস- শেখ একেএম জাকারিয়া       ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির আওতায় তাহিরপুরে তিন মাস মেয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন       তাহিরপুর উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারে ব্যাংক এশিয়া এজেন্ট ব্যাংকিং শাখার উদ্বোধন       বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ- শেখ একেএম জাকারিয়া       ব্যাংক এশিয়া লি. পৌর ডিজিটাল সেন্টার এজেন্ট ব্যাংকিং শাখার উদ্বোধন    


ডেস্ক নিউজঃ

আরও একবার ইউরোপ সেরা মুকুট পরল বায়ার্ন মিউনিখ। এনিয়ে তারা ষষ্ঠবারের মত ইউরোপ সেরার শিরোপা জিতল তারা। একই সঙ্গে জিতল ট্রেবলও।

লিসবনে রোববার রাতের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে পিএসজিকে ১-০ গোলে হারিয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। জার্মান ক্লাবটির পক্ষে একমাত্র গোল করেন কিংসলে কোমান।

ইউরোপের ক্লাব সেরার মঞ্চে এটি জার্মান বুন্দেসলিগা চ্যাম্পিয়নদের ৫০০তম গোল। তাদের আগে এই মাইলফলক ছুঁয়েছে কেবল দুই স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনা।

ম্যাচের ১৮তম মিনিটে কিলিয়ান এমবাপের ডি-বক্সে বাড়ানো বল ধরে কোনাকুনি শট নেন নেইমার। পা বাড়িয়ে কোনোমতে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান বায়ার্ন গোলরক্ষক মানুয়েল নয়ার।

২২তম মিনিটে সতীর্থের পাস ডি-বক্সে পেয়ে শরীরটাকে ঘুরিয়ে রবের্ত লেভানদোভস্কির নেওয়া শট গোলরক্ষককে ফাঁকি দিলেও পোস্টে বাধা পায়। পরের মিনিটে পাল্টা আক্রমণে ভালো জায়গায় বল পেয়েও উড়িয়ে মারেন আনহেল দি মারিয়া।

৩১তম মিনিটে ছোট ডি-বক্সের বাইরে থেকে বলে ঠিকমতো মাথা লাগাতে পারেননি লেভানদোভস্কি। পড়ে যাওয়ার আগ মুহূর্তে তার নেওয়া সোজাসুজি হেড দুবারের চেষ্টায় ঠেকান চোট কাটিয়ে ফেরা কেইলর নাভাস।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে ডি-বক্সে বল পেয়ে শট না নিয়ে ডানে পাস দেন দি মারিয়াকে। ফিরতি বল ঠেকিয়ে দেন নয়ার।

গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর ৬০তম মিনিটে এগিয়ে যায় বায়ার্ন। জসুয়া কিমিচের ক্রসে লাফিয়ে কোনাকুনি হেডে গোল করেন কোমান।

৭০তম মিনিটে কাছ থেকে মার্কিনিয়োসের শট পা দিয়ে ঠেকিয়ে দেন নয়ার।

যোগ করা সময়ে এরিক মাক্সিম চুপো-মোটিং নেইমারের বাড়ানো বলে ছোয়া লাগাতে পারেননি।

ইউরোপ সেরার মঞ্চে লিভারপুলের সমান ষষ্ঠ শিরোপা ঘরে তুললো জার্মান লিগ চ্যাম্পিয়নরা। তাদের ওপরে আছে কেবল এসি মিলান ও রিয়াল মাদ্রিদ। এছাড়া ফাইনালে জয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে রিয়ালের সমান টানা ১১ ম্যাচে জয়ের রেকর্ড গড়েছে বায়ার্ন। আর প্রতিযোগিতায় টানা ৩৪ ম্যাচে গোল করার পর নেইমার-এমবাপেরা জালের দেখা পাননি।

শান্তিবার্তা ডটকম/২৪ আগস্ট ২০২০