শিরোনাম
  স্মৃতিকথার ভবিষ্যৎবাণী- তুহীন আলম       হাওর বাঁচাও আন্দোলন সিলেট জেলা কমিটি গঠিত, মুক্তিযোদ্ধা মহি উদ্দিন আহ্বায়ক এড. শাহ সাহেদা সদস্য সচিব       ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদ গোবিন্দগঞ্জ’র কমিটি গঠন       সুনামগঞ্জ পৌরসভায় কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হলেন যারা       দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচন সম্পন্ন- বিচ্ছিন্ন সহিংসতার অভিযোগ       কুলাউড়া পৌর নির্বাচনে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর আ. লীগের শিপারের জয়       জগন্নাথপুর পৌর মেয়র হলেন বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী আক্তারুজ্জামান       ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের নতুন তিন মুখসহ ১৮ সদস্য দল ঘোষণা       ছাতক পৌরসভায় নির্বাচন- চতুর্থ বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হলেন আবুল কালাম চৌধুরী       সুনামগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন- দ্বিতীয় বারের মতো বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত নাদের বখত্    


ডেস্ক নিউজঃ

প্রাথমিকভাবে অনুমোদিত সময় তো বটেই, দফায় দফায় মেয়াদ বাড়িয়েও সড়ক উন্নয়নের দুই প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে না পারায় ক্ষোভ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রকল্প বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংস্থার মধ্যে সমন্বয়হীনতা দূর করে উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের গতি বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) প্রকল্প দুইটির সংশোধনী প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য উত্থাপন করা হয়েছিল জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে। এসময় প্রধানমন্ত্রী সংশোধনী প্রস্তাবগুলো অনুমোদন দিতে গিয়ে এমন প্রতিক্রিয়া জানান। বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে এ তথ্য তুলে ধরেন।

ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, খুলনা শিপইয়ার্ডের সড়ক প্রশস্ত ও উন্নয়ন করার প্রকল্পটি হাতে নেওয়া হয়েছিল ২০১৩ সালে, ২ বছর মেয়াদে। সাত বছর পর এসে প্রকল্পটির অগ্রগতি মাত্র ৩০ শতাংশ। প্রকল্পটি শেষ করতে আরও দুই বছর সময় চাওয়া হয়েছে। প্রকল্পটিতে ব্যয় বেড়েছে ১০৪ দশমিক ৭৭ শতাংশ। অন্যদিকে মেয়াদ ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

আরেক প্রকল্পের তথ্য তুলে ধরে মন্ত্রী জানান, নারায়ণগঞ্জের লাঙ্গলবন্দ থেকে মিনারবাড়ী পর্যন্ত সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পটি ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে দেড় বছর মেয়াদে হাতে নেওয়া হয়। প্রায় সাড়ে তিন বছর প্রকল্পের মেয়াদ আরও আড়াই বছর বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। ব্যয়ও বেড়েছে ১১৪ দশমিক ২০ শতাংশ।

পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, নারায়ণগঞ্জের প্রকল্পটিতে মূল কাজের বাইরে বাংলো বা টুরিস্টদের জন্য হোটেল নির্মাণের পরিকল্পনা যুক্ত করা হয়েছিল। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, মূল কাজটাই করুন। অর্থাৎ রাস্তা প্রশস্ত করুন, ঘাটলা নির্মাণ করুন। চায়ের দোকান বা অন্য দোকান বসানোর প্রয়োজন হলে বেসরকারিভাবে ব্যবসায়ীরাই সেটা করবেন। এছাড়া খুলনা শিপইয়ার্ডের সড়ক প্রশস্ত করা প্রকল্প নিয়েও ক্ষোভ ও বিরক্তি প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রকল্পটি রিভিউ করতে নির্দেশ দিয়েছেন পরিকল্পনা কমিশনকে।

শান্তিবার্তা ডট কম/২১ জুলাই ২০২০




স্মৃতিকথার ভবিষ্যৎবাণী- তুহীন আলম

হাওর বাঁচাও আন্দোলন সিলেট জেলা কমিটি গঠিত, মুক্তিযোদ্ধা মহি উদ্দিন আহ্বায়ক এড. শাহ সাহেদা সদস্য সচিব

ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদ গোবিন্দগঞ্জ’র কমিটি গঠন

সুনামগঞ্জ পৌরসভায় কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হলেন যারা

দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচন সম্পন্ন- বিচ্ছিন্ন সহিংসতার অভিযোগ

কুলাউড়া পৌর নির্বাচনে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর আ. লীগের শিপারের জয়

জগন্নাথপুর পৌর মেয়র হলেন বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী আক্তারুজ্জামান

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের নতুন তিন মুখসহ ১৮ সদস্য দল ঘোষণা

ছাতক পৌরসভায় নির্বাচন- চতুর্থ বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হলেন আবুল কালাম চৌধুরী

সুনামগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন- দ্বিতীয় বারের মতো বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত নাদের বখত্