শিরোনাম
  ডিজিটাল মেলা ’২০ এর উদ্বোধন, চলবে অনলাইনে       বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি- ৩০ জনের মরদেহ উদ্ধার       দেশের সামনে যে সংকটই আসুক সরকার তা মোকাবিলা করবে- প্রধানমন্ত্রী       নতুন করে আরও ৪ হাজার নার্স নিয়োগ- প্রধানমন্ত্রী       করোনা আপডেট- ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ৪০১৪, মৃত ৪৫, সুস্থ ২০৫৩       করোনা পরীক্ষার ফি ২০০ টাকা, বাসায় নমুনা নিলে ৫০০ টাকা- প্রজ্ঞাপন জারি       সরকারি প্রণোদনা পেতে করোনা রোগী সেজে ধরা পড়লেন হাসপাতালের কর্মচারী       দঃ সুনামগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাথে নবাগত অফিসার ইনচার্জ কাজী মোক্তাদির হোসেন’র মতবিনিময়       গ্রন্থাগারের আভিজাত্য ও সংজ্ঞায়ন       প্রত্যাশা ও প্রতিশ্রুতির যোগসূত্র সঠিক হলেই সফলতা আসবে    


ডেস্ক নিউজঃ

দেশব্যাপী তিন দিনের ‘ডিজিটাল মেলা ২০২০’ উদ্বোধন হয়েছে।  এবার করোনার কারণে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে মেলা অনুষ্ঠিত হবে। সোমবার সকালে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক মেলার উদ্বোধন করেন। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এ মেলার আয়োজন করেছে।

উদ্বোধনকালে তিনি বলেন, দেশের তথ্য বাতায়নকে তথ্যসেবায় রূপান্তর করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে ঘরে বসেই সেবা গ্রহীতার পরিচয় যাচাই, সেবার ইন্টার অপারেবলিটি এবং সেবামূল্য দেওয়া ডিজিটাল পেমেন্ট ব্যবস্থা নিশ্চিত সম্ভব হবে। তিনি মাঠপর্যায় থেকে শুরু করে সচিবালয় পর্যন্ত সবাইকে যেকোনো সেবা ডিজাইন করার ক্ষেত্রে এ তিনটি বিষয় নিশ্চিত করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। এর মাধ্যমে সেবা গ্রহীতা অনলাইনে চলে আসবে ও হয়রানি মুক্ত এবং অর্থ সাশ্রয় হবে বলেও জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ও আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের পরামর্শে  আইসিটি অবকাঠামো গড়ে তোলার কারণে মাত্র ১১ বছরের ব্যবধানে  বর্তমানে  দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ১০ কোটি ও ৬০০ এর বেশি সরকারি সেবা অনলাইনে সংযুক্ত করা সম্ভব হয়েছে। ২০১৪ সালে আমাদের ন্যাশনাল ওয়েব পোর্টাল ২৫ হাজার দিয়ে শুরু হয়েছিল আর এখন বিগত পাঁচ বছরে ৪৩ হাজারের বেশি ওয়েবসাইট এতে যুক্ত হয়েছে।

ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার ইকোনমিক ডিজিটাল হাব হিসেবে তথা সেবা দেওয়া প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আইসিটি বিভাগ থেকে ইনফো সরকার প্রকল্পের আওতায় প্রায় তিন হাজার ৮০০ ইউনিয়নে ডিজিটাল সেন্টারে হাইস্পিড ব্রডব্যান্ড কানেকশন পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। এর ফলে প্রতি মাসে প্রায় ৬০ লাখ মানুষ ডিজিটাল সেন্টার থেকে সেবা গ্রহণ করছে।

তিনি বলেন, আগামী ২০২১ সালের মধ্যে দুই হাজার ২০০ নতুন ডিজিটাল সেবা দেওয়া হবে। একইসঙ্গে জাতিসংঘের ই-গভর্নেন্স সূচকে ১১৫তম অবস্থান থেকে ‘দুই ডিজিট’ এ নিয়ে আসতে কাজ করছে আইসিটি বিভাগ। প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে বিভিন্নসেবা দেওয়ার বিষয় জনগণের কাছে তুলে ধরতে ডিজিটাল মেলার আয়োজন করা হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ বি এম আরশাদ হোসেন, এটুআই-এর পলিসি অ্যাডভাইজর আনীর চৌধুরী, বরগুনা জেলা প্রশাসক (ডিসি) মুস্তাইন বিল্লাহ, গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসক (ডিসি) শাহিদা সুলতানা এবং ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. মিজানুর রহমান।  বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকরা ডিজিটাল মেলা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অনলাইনে সংযুক্ত হন।

শান্তিবার্তা ডট কম/২৯ জুন ২০২০