শিরোনাম
  ইত্যাদি’র এবারে পর্বে মঞ্চ মাতাবেন সিলেটের তসিবা       বিধি-নিষেধ শিথিলতার মেয়াদ আর বাড়ছে না,চলবে ৫ আগস্ট পর্যন্ত       জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সাকিবের ব্যাটে বাংলাদেশের সিরিজ জয়       মাগুরায় সরকারি ভাতাভোগীর টাকা অন্যের মোবাইলে       অ্যাডভোকেট শফিকুল আলমের মৃত্যুতে পরিকল্পনামন্ত্রীর শোক       পল্লীবন্ধু হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদের ২য় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল       পাগলা বাজারে মনসুর ফ্যাশনের উদ্বোধন       নরসিংদীতে কাভার্ডভ্যান-লেগুনা সংঘর্ষে নিহত বেড়ে ৬       মেসেঞ্জারে ঢাবি ছাত্রীকে হেনস্তা, তদন্ত কমিটি গঠন       সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করোনা আক্রান্ত    


Spread the love

বিশ্ব জুড়ে চলছে মহামরী। এই কালো থাবা থেকে রক্ষা পায়নি বাংলাদেশ ও। চলছে করুণ পরিস্থিতি জনজীবন জুড়ে।করোনা ভাইরাসের সংক্রামণ রোধে চলছে সরকার ঘোষিত সাধারন ছুটি । সরকারি নির্দেশনা মেনে নিজ ঘরে অবস্থান করছেন দেশের মানুষ। বন্ধ রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, যানবাহন চলাচল। কিন্তু থেমে নেই প্রশাসনিক কাজকর্ম। জীবন বাজি রেখে নিজেদের দায়িত্ব পালনে অনড়,সামরিক বাহিনী, চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, পরিচ্ছনতা কর্মী, বিভিন্ন সেচ্ছাসেবক দল। আমরা তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ । এই ভয়ানক সংকটময় কালে কর্মহীন হয়ে পড়া দিনমজুর, শ্রমিক, রিকশাচালকসহ দুস্থ ও অসহায় পরিবারের সদস্যরা। দিশেহারা হয়ে পাড়ি দিচ্ছে দিনরাত। খাদ্য সংকটও দেখা দিয়েছে তাদের।এর একটাই কারন রোজগারের পথ আজ বন্ধ পুরোপুরিভাবে।

ঠিক এই সময়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা এবং জনগণকে সচেতন করার পাশাপাশি খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে সিলেট জেলা পুলিশ।নিজেদের বা পরিবারের কথা না ভেবে প্রিয় মাতৃভূমি আমজনতার পাশে এসে দাড়িয়েছে তারা। সেই সকল বীর দের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা। জেলা লকডাউন থাকায় অসহায়দের ঘরে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে ক্লান্তহীন ভাবে এক উপজেলা থেকে অন্য উপজেলায় ছুটে চলছে এই সাদা পায়রার ঝাঁক।যেন শান্তির বারতা নিয়ে বলে চলছে, “আমরা করবো জয়, আমরা আছি থাকবো পাশে, আবারও হাসবে প্রিয় দেশমাতৃকা”। কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য বলে গিয়েছিলেন , ক্ষুদার রাজ্যে পৃথিবী গদ্য ময় পূর্নিমার চাঁদ যেন ঝলসানো রুটি। করোনা পরিস্থিতিতে কোন মানুষ ক্ষুধার জ্বালায় যেন কষ্ট না পায় সেই কঠিন কথাগুলো যেনো বাস্তবে রুপান্তরিত না হয়। তাই সাধ্যমত খাবার নিয়ে ছুটছে সিলেট জেলা পুলিশের সদস্যরা। দিন রাত সব এক করে মানুষের জন্য কিছু করতে বলিষ্ট ভুমিকা পালন করে চলছে প্রতিনিয়ত।

এ মহৎ কাজের মূল মহানায়ক হিসেবে সকলকে সাথে নিয়ে কাজ করার প্রধান উদ্দোক্তা সিলেট জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন। স্যলুট সেই মহানায়ককে যিনি এই কঠিন সময়ে সদস্যদের সাথে নিয়ে নিরলসভাবে ছুটে চলছেন সিলেটবাসীর কল্যাণে। মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষেরা যারা লোকলজ্জার ভয়ে এসে ত্রাণ নিতে লাইনে দাঁড়াতে পারে না তাদের কথা মাথায় রেখে ফোনকলের মাধ্যমে ত্রাণ সেবা কার্যক্রম শুরু করে সিলেট জেলা পুলিশ।তাদের নির্ধারিত নাম্বারে কল দিলেই বাসায় পৌঁছে দেয়া হয় প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী। ফোন কলের মাধ্যমে সিলেট জেলার বিভিন্ন থানা এলাকায় নীরবে নিভৃতে কাজ করে চলছে এই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা । ১২ এপ্রিল২০২০ ইংরেজি সিলেট জেলা পুলিশ সুপার ফেসবুকে একটি পোষ্ট করে হট লাইন নাম্বার দেন যাচাই বাছাই পূর্বক নিন্মবিত্ত,মধ্যবিত্তদের মাঝে কেবল ফোন কলের ভিক্তিতেই জেলা পুলিশ সদস্যরা কখনো নৌযানে, কখনো মটরযানে কখনো সিএনজি কিংবা পায়ে হেঁটেই চালিয়ে যাচ্ছে তাদের মানবতার এই কাজ।

হটলাইন ফোনকলেই প্রায় ৩ হাজার পরিবার কে সহায়তা করেন এই সাদা পায়রার দল।মানবিক এই কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। রমজান মাসেও থেমে নেই জেলা উপজেলায় খাদ্য সামগ্রী নিয়ে ছুটে চলা।উদার মনের এই পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন বলেন,করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া অবদি চলবে সিলেট জেলা পুলিশ এর এই অন্তবিহীন পথচলা।শ্রদ্ধা ও সফলতা কামনা সিলেট জেলা পুলিশদের জন্য। ইনশাআল্লাহ একদিন করোনাভাইরাস নামটি থেকে মুক্তিপাবে পৃথিবী। কিন্তু আপনাদের এই মহৎ কার্যক্রম উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে রবে।

শান্তিবার্তা ডট কম/৩ মে ২০২০/ফারজানা মৃদুলা