শিরোনাম
  বিধি-নিষেধ শিথিলতার মেয়াদ আর বাড়ছে না,চলবে ৫ আগস্ট পর্যন্ত       জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সাকিবের ব্যাটে বাংলাদেশের সিরিজ জয়       মাগুরায় সরকারি ভাতাভোগীর টাকা অন্যের মোবাইলে       অ্যাডভোকেট শফিকুল আলমের মৃত্যুতে পরিকল্পনামন্ত্রীর শোক       পল্লীবন্ধু হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদের ২য় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল       পাগলা বাজারে মনসুর ফ্যাশনের উদ্বোধন       নরসিংদীতে কাভার্ডভ্যান-লেগুনা সংঘর্ষে নিহত বেড়ে ৬       মেসেঞ্জারে ঢাবি ছাত্রীকে হেনস্তা, তদন্ত কমিটি গঠন       সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করোনা আক্রান্ত       ইভ্যালি’র কার্যালয়ে তালা, হটলাইনেও মিলছে না সাড়া!    


Spread the love

শান্তিবার্তা ডেস্কঃ

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার আবদার এলাকায় আলোচিত প্রবাসী রেজোয়ান হোসেন কাজলের স্ত্রী ও তিন সন্তানের নির্মম হত্যাকাণ্ডের জড়িত সন্দেহে সুনামগঞ্জের ২ জন সহ আরও ৫ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যার-১)।

জড়িতরা র‌্যাবের কাছে স্বীকারোক্তি দিয়েছে, তারা সবাই মাদকসেবী। প্রবাসীর ঘরে চুরির ঘটনায় তাদের চিনে ফেলায় তার স্ত্রী ও দুই মেয়েকে ধর্ষণ ও ছেলেসহ সবাইকে হত্যা করে তারা।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো, সুনামগঞ্জের গাবি গ্রামের মো. হানিফ (৩২), সুনামগঞ্জের কাঠালবাড়ি গ্রামের মো. এলাহি মিয়া (৩৫) শ্রীপুর উপজেলার আবদার এলাকার মো. কাজিম উদ্দিন (৫০), একই গ্রামের মো. বশির (২৬), ময়মনসিংহের ফকির পাড়া গ্রামের মো. হেলাল (৩০) ।

র‌্যাব জানায়, গত ২৩ এপ্রিল শ্রীপুর উপজেলার আবদার এলাকার একটি ফ্ল্যাট বাড়ির দ্বিতীয় তলায় মালয়েশিয়া প্রবাসী কাজলের স্ত্রী স্মৃতি ফাতেমাসহ ওই দম্পতির মেয়ে সাবরিনা সুলতানা ওরফে নূরা (১৬), হাওয়ারিন (১৩) এবং ছেলে ফাদিলের (৮) গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। গত ২৪ এপ্রিল গৃহবধূর শ্বশুর আবুল হোসেন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে শ্রীপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

এই ঘটনায় ছায়া তদন্ত শুরু করে র‌্যাব-১। এরই ধারাবাহিকতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শ্রীপুর থানার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ওই পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব সদস্যরা।

পরে গ্রেপ্তারকৃতদের দেওয়া তথ্যমতে, ওই প্রবাসীর ফ্ল্যাট থেকে লুটকৃত মালামাল ও আসামিদের পরিধেয় রক্তমাখা কাপড়, নগদ ৩০ হাজার টাকা, একটি হলুদ রংয়ের গেঞ্জি, জিন্স প্যান্ট, তিনটি লুঙ্গি এবং একটি আংটি উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃতরা হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে নিজেদের সম্পৃক্ততার কথাও স্বীকার করেছে বলে জানায় র্যাব।

গ্রেপ্তার কাজিম উদ্দিন রিকশাচালক, হানিফ শ্রমিক, বশির অটোরিকশাচালক, হেলাল ভাঙ্গারি বিক্রেতা এবং এলাহি মিয়া শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন। তারা প্রত্যেকেই মাদকসেবী। এ ছাড়া বিভিন্ন এলাকায় চুরি, ছিনতাইসহ নানাবিধ অপরাধের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জড়িত তারা। এরা সবাই জুয়াড়ি এবং হত্যাকাণ্ডের শিকার প্রবাসীর স্ত্রী যে এলাকায় থাকতেন, তাদের বাড়ি সংলগ্ন স্থানে নিয়মিত মাদক সেবন করতো ও আড্ডা দিতো।

র‌্যাব আরও জানায়, গ্রেপ্তার হওয়া কাজিম উদ্দিনের ছেলে পারভেজ আনুমানিক দেড় মাস আগে সন্ধ্যার দিকে গোপনে স্মৃতি ফাতেমার বাসায় খাটের নিচে লুকিয়ে থাকা অবস্থায় ধরা পড়েছিল। সে ধর্ষণসহ হত্যা মামলার আসামি।

শান্তিবার্তা ডট কম/৩০ এপ্রিল২০২০