শিরোনাম
  বিধি-নিষেধ শিথিলতার মেয়াদ আর বাড়ছে না,চলবে ৫ আগস্ট পর্যন্ত       জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সাকিবের ব্যাটে বাংলাদেশের সিরিজ জয়       মাগুরায় সরকারি ভাতাভোগীর টাকা অন্যের মোবাইলে       অ্যাডভোকেট শফিকুল আলমের মৃত্যুতে পরিকল্পনামন্ত্রীর শোক       পল্লীবন্ধু হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদের ২য় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল       পাগলা বাজারে মনসুর ফ্যাশনের উদ্বোধন       নরসিংদীতে কাভার্ডভ্যান-লেগুনা সংঘর্ষে নিহত বেড়ে ৬       মেসেঞ্জারে ঢাবি ছাত্রীকে হেনস্তা, তদন্ত কমিটি গঠন       সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করোনা আক্রান্ত       ইভ্যালি’র কার্যালয়ে তালা, হটলাইনেও মিলছে না সাড়া!    


Spread the love

বিশেষ প্রতিনিধিঃ

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা ও মাঠ পর্যায়ের সরকারের সকল কাজ বাস্তবায়নে ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালন করছেন সুনামগঞ্জ জেলার ৮৮জন ইউপি সচিব। একইভাবে তৃণমূলে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন দেশের ৪হাজার ৫শত ৭১জন ইউনিয়ন পরিষদ সচিব। তবে এজন্য ইউপি সচিবদের সংগঠন ‘বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি (বাপসা)’ সুনামগঞ্জ জেলা কমিটি সরকারি প্রণোদনা ও স্বাস্থ্যবীমায় অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছেন।
জানা যায়, ইউনিয়ন পরিষদ সচিবরা এই দূর্যোগকালীন মুহুর্তে দুঃস্থ অসহায় রিক্সাচালক, ভ্যানচালক, সিএনজি চালক, পরিবহন শ্রমিক, কর্মহীন দিনমজুর, ফেরিওয়ালা, প্রতিবন্ধী, বেদে, হিজরা, ভবঘুরে, ভিক্ষুক, কৃষি শ্রমিক, মৎস্যজীবি, রেস্টুরেন্ট-হোটেল শ্রমিক, চায়ের দোকানদার ও অন্যান্য উপকারভোগীদের তালিকা জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় প্রস্তুত করতে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন প্রকার দাপ্তরিক কাজ রিপোর্ট/রিটার্ণ প্রেরণ,জরুরী ত্রাণ কার্যক্রম হিসাবে ভিজিএফ, ভিজিডি, জিআর চাল উত্তোলন, গুদামজাতকরণ ও বিতরণ । ইউনিয়ন করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব হিসেবে প্রবাসীদের তালিকা তৈরী, হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা, মাইকিং করা, জনগনকে সচেতন করার কাজ বাস্তাবায়ন করছেন। ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন জনগনের দ্বারে দ্বারে সেবা প্রদান করছেন।
এই বিষয়ে ‘বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি (বাপসা)’ সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি ও দিরাই উপজেলার সরমঙ্গল ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল আমিন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনার আলোকে সারা বাংলাদেশের ৬৪ জেলার ৪৫৭১জন ইউনিয়ন পরিষদ সচিব জীবনেস ঝুঁকি নিয়ে ে নোভেল করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা প্রণোদনায় অন্তর্ভুক্তি ও স্বাস্থ্যবীমার দাবি জানাচ্ছি।
বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি (বাপসা) সুনামগঞ্জ জেলা শাখার উপদেষ্টা ও দোয়ারাবাজার উপজেলার মান্নারগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ সচিব মৃণাল কান্তি দাশ বলেন, দেশে করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রার্দুভাব দেখা দেয়ার পর থেকে স্বাস্থ্য বিভাগের পাশাপাশি জেলার ৮৮ জন ইউনিয়ন পরিষদ সচিব নিরলসভাবে কাজ করছে।
এ ব্যাপারে ‘বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি (বাপসা)’ সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম পাগলা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব আলী হোসেন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত “করোনার ঝুঁকি নিয়ে যারা কাজ করবেন তাদের পুরস্কৃত করাসহ স্বাস্থ্য বীমা প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন”। এমতাবস্থায় ইউনিয়ন পরিষদ সচিবদের সুরক্ষা ও স্বাস্থ্য বীমা প্রদানসহ করোনা যোদ্ধা হিসেবে ঘোষিত প্রণোদনার অন্তর্ভূক্ত করণের নিমিত্তে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়, জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট সকলকে জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানান।
‘বাপসা’ সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম পাগলা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব আলী হোসেন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন “করোনার ঝুঁকি নিয়ে যারা কাজ করবেন তাদের পুরস্কৃত করাসহ স্বাস্থ্য বীমা প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন”। ইউনিয়ন পরিষদ সচিবদের সুরক্ষা ও স্বাস্থ্য বীমা প্রদানসহ করোনা যোদ্ধা হিসেবে ঘোষিত প্রণোদনার অন্তর্ভূক্ত করার দাবি জানাই।

শান্তিবার্তা ডট কম/১৭ এপ্রিল২০২০/সূত্র-সুনামগঞ্জের খবর