শিরোনাম


শান্তিবার্তা ডেস্কঃ

নীলফামারী জেলাকে লকডাউন করা হয়েছে। আজ দুপুরে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে জেলা তথ্য বিভাগ ওই নির্দেশনা প্রচার করে।

৯ এপ্রিল হতে একটি গণবিজ্ঞপ্তিতে জেলা প্রশাসক ১০ এপ্রিল সকাল থেকে জেলায় সব ধরনের যানবাহন, গণপরিবহন প্রবেশ ও বহির্গমন বন্ধ ঘোষণা করেন।

আজ দুপুরে জেলা লকডাউনের ঘোষণা মাইকে প্রচারণা চালায় জেলা তথ্য বিভাগ। এতে বলা হয়, জেলায় জরুরি পরিষেবায় নিয়োজিত যানবাহন ছাড়া সব ধরনের যানবাহন, দোকানপাট, সাপ্তাহিক হাট-বাজার, প্রতিষ্ঠান এবং গণপরিবহন পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। ব্যাংকসহ অন্যান্য সরকারি প্রতিষ্ঠিান বিধি অনুযায়ী পরিচালিত হবে। অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দোকান, কৃষিপণ্য ও যন্ত্রাংশের দোকান সকাল ৭টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। ওষুধের দোকান, হাসপাতাল ও ক্লিনিক দিন–রাত সবসময় খোলা থাকবে। প্রয়োজনের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশনা মোতাবেক কাঁচাবাজারের পণ্যসামগ্রী সকাল ৭টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে। তবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এসব কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে।আদেশ অমান্য করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, গতকাল সোমবার পর্যন্ত নীলফামারীতে ৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। তাদের মধ্যে ৭ এপ্রিল কিশোরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন চিকিৎসক, ৯ এপ্রিল সৈয়দপুরের একজন, ১১ এপ্রিল ডিমলার এক এসএসসি পরীক্ষার্থী এবং ১৩ এপ্রিল জলঢাকার এক কলেজছাত্রের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।

জেলা প্রশাসক সূত্রে জানা ইতিপূর্বের নির্দেশনাগুলো লকডাউনের মধ্যে পড়লেও আতঙ্ক এড়ানোর জন্য সে সময় ‘লকডাউন’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়নি। বর্তমান প্রেক্ষাপটে লকডাউন ঘোষণা করে ওই আদেশ জারি করা হয়েছে।

শান্তিবার্তা ডট কম/১৪ এপ্রিল২০২০