শিরোনাম


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত ডাক্তার অসুস্থ্য স্থানীয় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানকে বাড়িতে দেখতে না যাওয়ায় চেয়ারম্যানের স্বজনরা ডাক্তারকে লাঞ্ছিত করেছেন। এ ঘটনায় রোববার বিকাল সাড়ে ৩ টায় লাঞ্ছিত ডাক্তার থানায় জিডি করেছেন।
দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক স্বপন সরকার জানান, রোববার সকালে জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত ছিলেন তিনি। সকাল সাড়ে ছয়টায় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের ভাগ্নে রাজিব এসে চেয়ারম্যান সাহেব অসুস্থ্য তাকে দেখতে তার সঙ্গে বাড়িতে যাবার কথা বলেন। স্বপন সরকার এসময় রাজিবকে জানান, তিনি জরুরি বিভাগে একাই দায়িত্ব পালন করছেন, এভাবে জরুরি বিভাগ ডাক্তার শূন্য রেখে যাওয়া যাবে না। এরপর রাজিব ক্ষুব্ধ হয়ে চলে যান। কিছুক্ষণ পর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের ছেলে শাহান চৌধুরী ও ভাই আবুল কাশেম চৌধুরীসহ কয়েকজন এসে স্বপন সরকারকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। তারা জরুরি বিভাগের কিছু জিনিষপত্র ভাংচুরও করেন। শব্দ পেয়ে দ্বিতীয়তলা থেকে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কর্মকর্তা এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন।
বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. সৈকত দাস ঘটনার তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবার দাবি জানান।
দিরাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল আলম চৌধুরী’র মুঠোফোন বন্ধ রয়েছে।
তাঁর ভাই আবুল কাশেম চৌধুরী বলেন, অসুস্থ্য উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানকে দেখার জন্য একজন ডাক্তার আনতে গেলে ডা. স্বপন সরকার জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত আছেন জানিয়ে কোন প্রকার সহযোগিতা করেননি। একজন স্টাফও পাঠাননি। একটি ফোন দিয়েও চেয়ারম্যানের খোঁজ নিতে চাননি। পরে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কর্মকর্তাও ভালো আচরণ করেননি। এরপর আমরা উত্তেজিত হয়েছি।
দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান বলেন, আমাদের পক্ষ থেকে বিষয়টি স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা প্রশাসনসহ উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। বিকালে থানায় জিডি করা হয়েছে।
সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. শামছুদ্দিন জানান, দিরাইয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের আত্মীয়-স্বজন ডাক্তারদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছেন বলে আমাকে জানানো হয়েছে।
দিরাই থানার ওসি কেএম নজরুল ইসলাম জানান, ডা. স্বপন সরকার এই বিষয়ে থানায় জিডি করেছেন।

শান্তিবার্তা ডট কম/১২ এপ্রিল২০২০/সুনামগঞ্জের খবর