শিরোনাম
  অপরিকল্পিত নলজুর নদী খনন কার্যক্রম পরিদর্শনে বেলা       দৈনিক জৈন্তা বার্তা’র ছাতক প্রতিনিধির দায়িত্ব পেলেন মোশাররফ হোসেন       গণগ্রন্থাগারে সরকারি অনুদান বাড়ানোর দাবি       ফারমিছ আক্তারকে ‘নির্ভীক নারী উদ্যোক্তা সম্মাননা’ প্রদান       সাংবাদিকতায় সফল নারী সুবর্ণা হামিদ       আন্তর্জাতিক নারী দিবস আজ       নারী দিবসের সংগ্রামী ইতিহাস- শেখ একেএম জাকারিয়া       ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির আওতায় তাহিরপুরে তিন মাস মেয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন       তাহিরপুর উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারে ব্যাংক এশিয়া এজেন্ট ব্যাংকিং শাখার উদ্বোধন       বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ- শেখ একেএম জাকারিয়া    


নিজস্ব প্রতিবেদক: মাহবুবা রহমান শুভা, অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। ইকোনমিক্স নিয়ে পড়ছেন সিলেটের ঐতিহ্যবাহী এম.সি কলেজে। সিলেটে আরও হাজারো মেয়ের মতই একদম স্বাভাবিক জীবন যাপন করছেন তিনি। লেখাপড়ার পাশাপাশি নিজেকে ব্যস্ত রাখছেন মানব সেবায়। গতকাল রাতে ১০টার দিকে পরিচয় গোপন রেখে ফোন দেন ‘ছাত্র অধিকার পরিষদ’ এর বিভাগীয় আহবায়ক জনাব, নাজমুস সাকিবের কাছে।

আপনারা এই দেশের এই কঠিন পরিস্থিতির মাঝে মানুষের পাশে একটা বড় সেতু হয়ে দাঁড়িয়েছেন, তার জন্য ধন্যবাদ। ভাই, আমি একজন ছাত্রী। শহরে থেকে লেখাপড়া করি, বাবা বাড়ি থেকে যে খরচ দেন আমাকে সেখান থেকে আমি অল্প অল্প করে মাটির ব্যাংকে টাকা জমাই। সেই মাটির ব্যাংক থেকে প্রায় ৩০০০টাকা বের হইছে। এখন আমি এই টাকা দিয়ে কি অন্তত ৩/৪টা পরিবারের এক সপ্তাহের খাবার পোষাতে পারবো? প্রতি উত্তর ছিলো হ্যাঁ সম্ভব।

তাইলে আমি আপনাদের মাধ্যমে দেশের এই দূর্যোগে ক্ষুদ্র অংশীদারিত্ব হতে চাই। দয়া করে আমার টাকা নেন। শুভা” প্রথমে নিজের পরিচয় গোপন রেখেই দান করতে চেয়েছেন। কিন্তু দেশের মানুষের উৎসাহ বাড়াতে উনার থেকে অনুমতি সাপেক্ষে এই লেখা। এতে অনেকেই আগ্রহী হবে দান করতে। অনার্স দ্বিতীয় বর্ষে পড়ুয়া একটা মানুষের কাছে আছে দেশের আরও ৩/৪ পরিবারকে এই দুর্দিনের মাঝে সাহায্য করছেন। নিজের দেশ রক্ষায় অংশ নিয়েছেন তিনি। অন্যদিকে যারা সরকারের হাত থেকে টাকা অনুদান পাওয়ার পরও গরীব অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে যেনো ভয়।