শিরোনাম
  করোনা আক্রান্ত ছিলেন অধ্যাপক আনিসুজ্জামান       সুনামগঞ্জে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা বৃত্তি ও বাইসাইকেল বিতরণ       করোনা ভাইরাস আতঙ্কে মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষায় করণীয়       সিলেটে আরো ২ জন করোনা পজিটিভ       পদক্ষেপ’র সুরমা ব্রাঞ্চের আওতায় ৯৬ টি পরিবারে নগদ টাকা ও ২০০ টি পরিবারে খাদ্য সামগ্রী বিতরন       দোয়ারাবাজারের খাসিয়ামারা বালুমহাল ইজারা না দেওয়ার দাবি       সিলেটে করোনায় মারা যাওয়া কারাবন্দির লাশ নেয়নি পরিবার       কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে প্রথম দু’জন করোনায় আক্রান্ত       ৩০ মে পর্যন্ত ছুটিতে যেসব বিধি-নিষেধ মানতে হবে       ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাবনা, বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ    


শান্তিবার্তা ডেস্ক::

সম্প্রতী দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার জাউয়া বাজার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুরাদ হোসেন তার ইউনিয়নের সকল অধীবাসিদেরকে উদ্দেশ্য করে একটি অভিনব খোলা চিঠি ছেড়েছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। ইতিমধ্যে তার সে চিঠি ভাইরাল হয়ে পড়ে এবং প্রশংসিত হয়। বৃহত্তর স্বার্থে তা হুবহু তুলে দেওয়া হলো।

“আসসালামু আলাইকুম ও আদাব।
সুপ্রিয় জাউয়া বাজার ইউনিয়নবাসী। আপনারা নিশ্চয় বর্তমান পরিস্থিতিতে সবাই ভালো নেই। আপনারা সুস্থ হলে আমি সুস্থ থাকি। আপনারা সামান্য পরিমাণ ক্ষতিগ্রস্ত হলে আমি ব্যথিত হই। প্লিজ আপনারা ঘরে থাকুন, আমি বাহিরে আছি। আল্লাহর দোহাই আপনাদের প্রত্যেকের সঠিক হিসাব আমার কাছে আছে। কেউ হতাশ হবেন না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর মহানুভবতার উপর আস্থা রাখুন। আমরা তার দেয়া আমানত আপনাদের কাছে পৌঁছিয়ে দেবো ইনশাআল্লাহ। একচুল পরিমাণ দায়িত্বে অবহেলা করবো না। আজ থেকে অন্তত ৭টা দিন মাত্র ঘরে থাকুন। আমাদের দেশের স্বার্থে। এলাকার স্বার্থে। আমাদের বৃদ্ধ বাবা-মা, ছেলে-মেয়ে, চাচা-চাচী, দাদা-দাদী, নানা-নানীর স্বার্থে। প্লিজ আপনাদের হাতে ধরছি। ঘরে থাকুন। সাতটি দিন ঘরে থাকুন।

আপনারা জানেন, ইতোমধ্যে ইউনিয়নে ১৩৬৭ কার্ডধারী ১০ টাকা ধরে চাল পাচ্ছেন । ১৩০ জন খেটে খাওয়া মানুষকে চাল-ডাল-আলু দিয়েছি। ১৯২ জন ভিজিডি উপকারভোগী পরিবারকে ৩০ কেজি করে চাল আগামীকাল দেয়া হবে।
আজ (গতকাল) আরো ৪৫০ জনের লিস্ট করেছি। তাদেরকেও উপযুক্ত সাহায্য দেয়া হবে। পরবর্তীতে আরো ৪৫০ জনের লিস্ট রেডি হচ্ছে। আমার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকেও সাধ্যানুযায়ী প্রতিদিন দিয়ে যাচ্ছি। এবং এই সংকট চলাকালীন সময়ে সবসময় আমি আপনাদের পাশে থাকবো। এ আমার শপথ।
আমি গর্বিত আমার ইউনিয়নকে নিয়ে। আমি গর্বিত আমার উদ্যমি জনগণকে নিয়ে। আমার ইউনিয়নের প্রায় প্রতি গ্রামে গ্রামে যুবসাধারণ তারা তাদের সাধ্যমতো মানবতার কল্যাণে এগিয়ে এসেছে। ইতোমধ্যে দেখেছি, জাউয়া গ্রাম, বড়কাপন, দেবের গাও, কৈতক, গণিপুর, সাদারাই ও বাদেশ্বড়ী গ্রামের যুবকরা সাধ্যমতো সাহায্য করে যাচ্ছে। তাদের কর্মস্পৃহা আমাকে আপ্লুত করেছে। আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ। আল্লাহ পাক সকলের দানকে কবুল করুন। আমি সমাজের সকল বৃত্তশালী মানুষকে আহ্বান জানাই দেশের এই সংকটময় মুহুর্তে যার যার সাধ্যানুযায়ী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য। আমি ফেইসবুকে দেখেছি কবি আহমদ আল কবির চৌধুরী আমাদের এলাকায় মানবতার ঘর স্থাপন করতে চায়। আমি তাকে সাধুবাদ জানাই। আমি বিশ্বাস করি সৎ উদ্দেশ্য মানুষকে উপরে তোলে। অতীতেও সে মানুষের জন্য অনেক কিছু করেছে। এখনও করে যাচ্ছে। যে কেউ এরকম ভালো কাজ করলে আমার সর্বাত্মক সহযোগিতা থাকবে ইনশাআল্লাহ। আমি আশা করবো যার যতোটুকু আছে তা নিয়ে জনকল্যাণকর কাজে ঝাঁপিয়ে পড়ুন। মনে রাখবেন, মানুষ মানুষের জন্য। ইনশাআল্লাহ মানুষের জয় হবেই।

আমি আবারো বলছি, আপনারা ঘরে থাকুন। আপনাদের জন্য আমি বাহিরে আছি। আপদকালিন সময়ে বাহিরেই থাকবো ইনশাআল্লাহ।”